Wednesday, May 25, 2022

ঢাবি শিক্ষার্থীকে গেস্টরুমে নির্যাতনের অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হলের এক শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ওই হলের ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে। এছাড়া কথিত ‘গেস্টরুমে’ ম্যানার শেখানোর নামে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি, গায়ে হাত তোলাসহ রাতের বেলায় হল থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত একটায় গেস্টরুমে ওই শিক্ষার্থীকে মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়। এর আগে গত বছরের ৮ অক্টোবর জহুরুল হক হলের দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত ওই ছাত্রলীগ কর্মীর নাম মিম্মুর সালিম পরাগ। তিনি ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। পরাগ শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রুবেল হোসেন ও ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের অনুসারী।

জানা যায়, শুক্রবার রাতে প্রথম বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে গেস্টরুমে বিভিন্ন আজেবাজে কাজ করতে বলা হয়। এসময় সে পারবে না বলে জানায়। পরে তার ওপর চড়াও হয় পরাগ। এসময় পরাগ তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে এবং তার গায়ে হাত তুলতে যায়৷ পরে তাকে গেস্টরুম থেকে বের করে দেওয়া হয়।

দ্বিতীয় বর্ষের একাধিক শিক্ষার্থী দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, পরাগ খুবই উগ্র। তার ব্যবহার এতো খারাপ যে ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। গেস্টরুমে সে জুনিয়রদের সাথে খুবই আক্রমণাত্নক ব্যবহার করে। অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে ও তাদের যখন তখন হাত তুলতে সে দ্বিধা করে না।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত মিম্মুর সালিম পরাগকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ রুবেল হোসেন সম্পাদক দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, এই বিষয়ে আমি কিছু জানি না। আমি খোঁজ নিচ্ছি। এরপর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জহুরুল হক হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. দেলোয়ার হোসেনকে ফোন দেয়া হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে জানান।

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

সর্বশেষ