Monday, May 23, 2022

ইংরেজি নামের ১২ জনকে ‘আনফ্রেন্ড’ করলেন মোস্তফা জব্বার

ফেসবুক সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম। পুরোনো বন্ধুকে খুঁজে নেওয়া থেকে নতুন বন্ধু পাওয়ার জন্যও অনেকে ব্যবহার করেন প্ল্যাটফর্মটি। এতে ব্যবহারকারীরা পছন্দমত নিজেদের নাম দিয়ে থাকেন। বেশিরভাগ ব্যবহারকারীই নিজেদের অফিসিয়াল নামে ফেসবুক আইডি খুলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।

মাঝে মাঝে কিছু বিচিত্র নামেরও ফেসবুক আইডি দেখা যায়। অনেকে ফুল, পাখি লতা-পাতা কিংবা অ্যাঞ্জেলের নামে ফেসবুকে আইডি খোলেন। এক্ষেত্রে বাংলা-ইংরেজি বা অন্য যেকোনো ভাষায় ফেসবুকে আইডি খোলা যায়। এক্ষেত্রে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার নিজের বন্ধুর তালিকায় ইংরেজি নামের বন্ধুদের রাখেন না।

মন্ত্রীর নিজের ফেসবুক আইডির নামও বাংলা ভাষায়। মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধার জায়গা থেকে তাই তিনি বাংলা ভাষায় যাদের ফেসবুক আইডি তাদেরকে পছন্দ করেন। একইসঙ্গে তিনি বাংলা ছাড়া ভিন্ন ভাষার ব্যবহারকারীদেরকে বন্ধু হতে অনুরোধ জানাতেও নিষেধ করেছেন।

এরকম ইংরেজি ভাষার ১২ জনকে মন্ত্রী বন্ধুর তালিকা থেকে বের করে আজ সোমবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘‘এই মাত্র ১২ জনকে বন্ধু তালিকা থেকে বের করে দিলাম। তারা বাংলা হরফে নাম লিখে বন্ধু হয়ে এখন আবার ইংরেজিতে ফিরে গেছে। অনুগ্রহ করে ইংরেজি হরফে নাম থাকলে বন্ধুর অনুরোধ করবেন না বা বাংলায় নাম লিখে বন্ধু হয়ে আবার ইংরেজিতে ফিরে যাবেন না।’’

মোস্তফা জব্বার এ পোস্টে ব্যবহারকারীদের তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। মন্ত্রীর কাজে সমর্থন জানিয়ে মন্তব্যের ঘরে পারভীন আকতার নামে একজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘‘এটা তো এক ধরনের প্রতারণা। বন্ধুত্ব পাওয়ার লোভে বাংলায় নাম লিখে আবার বন্ধু পেয়ে গেলে ইংরেজিতে দৌঁড়! বাংলায় ডুবে জলে তলে চলে ফের ইংরেজির পোদ্দারি কেনরে বাবা বুঝি না কিছুই।’’

শাহাদত হোসাইন নামে আরেকজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘‘আমাদের দেশে ভাষার জন্য আমার ভাইয়েরা রক্ত দিয়েছে সেটা আমরা ভুলে যাই। সেখানে আমাদের দেশের একজন মন্ত্রী মহোদয় ভাষার জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছে সেখানে আমরা হা-হা রিয়্যাক্ট দেই। বাঙালিরা আর কবে মানুষ হবে সেটা আমার জানা নেই।’’

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

Leave a Reply

সর্বশেষ